শুক্রবার, আগস্ট 12, 2022

রিং সাইনকে অধিগ্রহণে আগ্রহী ইউনিয়ন গ্রুপ

পুঁজিবাজার ডেস্কঃ পুঁজিবাজারের বস্ত্র খাতে তালিকাভুক্ত কোম্পানি রিংসাইন টেক্সটাইলকে অধিগ্রহণ করছে দেশের অন্যতম ইউনিয়ন গ্রুপ। কোম্পানিকে অধিগ্রহণ করার জন্য শিল্প গ্রুপটির পক্ষ থেকে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) আগ্রহ প্রকাশ করা হয়েছে। গত ১৭ মে ইউনিয়ন গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ সংক্রান্ত একটি চিঠি পাঠিয়েছে বলে বিএসইসি সূত্রে জানা গেছে।

ইউনিয়ন গ্রুপের পাঠানো চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, রিং সাইনের মতোই ইউনিয়ন গ্রুপের ব্যবসায়িক কার্যক্রমের অভিজ্ঞতা রয়েছে। যদিও কোম্পানির নিট সম্পদের মূল্য নেতিবাচক, তবে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকারদের অনুরোধ, শেয়ারবাজারের বিনিয়োগকারীদের স্বার্থ রক্ষা এবং দেশের সম্পদ বাঁচাতে আমরা কোম্পানিটি অধিগ্রহণ করতে আগ্রহী। যেহেতু রিং সাইনের কারখানা ১৯৯৮ সাল থেকে তাদের বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু করেছিল, সেহেতু কোম্পানির বেশিরভাগ যন্ত্রপাতি এখন খারাপ অবস্থায় রয়েছে। এছাড়া কোম্পানির বিশাল দায় রয়েছে, যা সম্পদের চেয়ে অনেক বেশি। কোম্পানিটি ভালো পারফরম্যান্স না করায় এর দায় দিন দিন বাড়ছে। কোম্পানিকে অধিগ্রহণ করা হলে, আমাদের দক্ষতা দিয়ে বিএমআরই এর মাধ্যমে এবং যুক্তিসঙ্গত স্তরে উৎপাদন ক্ষমতা বাড়াতে চেষ্টা করা হবে।

ইউনিয়ন গ্রুপের টেক্সটাইল, মোবাইল ফোন, এভিয়েশন, রিয়েল এস্টেটসহ বেশ কয়েকটি কোম্পানি রয়েছে। বিশ্বব্যাপী সোয়েটার শিল্পে সর্বোচ্চ পরিমাণ সুতা সরবরাহ করে থাকে তারা। বর্তমানে আট হাজার লোকের কর্মসংস্থান রয়েছে এ প্রতিষ্ঠানে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএসইসির একজন কর্মকর্তা বলেন, রিং সাইনকে অধিগ্রহণ করার জন্য দেশীয় একটি শিল্প গ্রুপ আগ্রহ দেখিয়েছে। এ বিষয়ে তারা কমিশনে একটি প্রস্তাব দিয়েছে। কমিশন মনে করে কোম্পানিটি পুরোদমে চালু হলে দেশে কর্মসংস্থান বৃদ্ধির পাশাপাশি বিনিয়োগকারীদের স্বার্থও রক্ষা পাবে। তাই কমিশন এ বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখছে।

জানা গেছে, পুঁজিবাজারে বস্ত্র খাতে তালিকাভুক্ত কোম্পানি রিং সাইন টেক্সটাইলসের আর্থিক সক্ষমতা যাচাইয়ের সিদ্ধান্ত নেয় নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি। পর্ষদ পুনর্গঠনের পর গত বছরের জুন থেকে কোম্পানি পুনরায় উৎপাদনে ফিরেছে। ফলে নতুনভাবে উৎপাদনে ফেরার পর আর্থিক সক্ষমতা যাচাই করার লক্ষ্যে রিং সাইন টেক্সটাইলসের পরিচালনা পর্ষদের সঙ্গে সম্প্রতি বৈঠক করেছে বিএসইসি। বৈঠকে বাংলাদেশ রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকা কর্তৃপক্ষ (বেপজা), প্রিমিয়ার ব্যাংক, ওয়ান ব্যাংক, ঢাকা ব্যাংক, ইস্টর্ন ব্যাংক ও কোরিয়াভিত্তিক উরি ব্যাংকের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে, দীর্ঘদিন উৎপাদন বন্ধ থাকার পর রিং শাইন টেক্সটাইলস মিলস গত বছরের ১৩ জুন থেকে ২৫ শতাংশ উৎপাদনে ফিরেছে। ফলে প্রত্যাহার করে নেওয়া হয় কোম্পানির উৎপাদন বন্ধের নির্দেশনা। কোম্পানিকে উৎপাদনে ফেরাতে কয়েক দফায় পদক্ষেপ নেয় নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি। প্রথম দফায় কোম্পানির পর্ষদ পুনর্গঠন করে। এরপরে আইপিওর ফান্ড ব্যবহারে অনুমোদন ও ভুয়া প্লেসমেন্ট শেয়ার বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। এছাড়া রিং সাইনের উৎপাদন শুরু করতে সর্বাত্মক সহযোগিতা করে বেপজা।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের ১২ মার্চ বিএসইসি রিং সাইন টেক্সটাইলসকে আইপিওর মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে টাকা তোলার অনুমোদন দেয়। কোম্পানিটি যন্ত্রপাতি ও কলকব্জা ক্রয়, ঋণ পরিশোধ এবং আইপিও খরচ খাতে ব্যয় করতে শেয়ারবাজারে ১৫ কোটি সাধারণ শেয়ার ছেড়ে ১৫০ কোটি টাকা উত্তোলন করে। বর্তমানে কোম্পানির পরিশোধিত মূলধন ৫০০ কোটি ৩১ লাখ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির মোট শেয়ার সংখ্যা ৫০ কোটি ৩ লাখ ১৩ হাজার ৪৩টি। ২০২০ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত সর্বশেষ হিসাব অনুযায়ী কোম্পানির উদ্যোক্তা পরিচালকের হাতে ৩১.৫৪ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের হাতে ১৬.২৩ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে ৫২.১৮ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।

spot_img

অন্যান্য সংবাদ