শুক্রবার, সেপ্টেম্বর 30, 2022

মার্চে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বেড়েছে, কমেছে বিদেশিদের

পুঁজিবাজার ডেস্কঃ নানা ইস্যুতে গেলো মার্চে দেশের শেয়ারবাজারে ব্যাপক দরপতন হয়। এ সময় পরিশোধিত মূলধন এবং বাজার মূলধন উভয় বিবেচনায় প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বেড়েছে। তবে এই সময়ে কমেছে বিদেশিদের বিনিয়োগ।

মার্চ শেষের বাজার মূলধনে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের অংশ শূন্য দশমিক ৩৩ শতাংশ পয়েন্ট বেড়ে ১৪ দশমিক ৯৬ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। মোট শেয়ারে শূন্য দশমিক শূন্য ৪ শতাংশীয় পয়েন্ট বেড়ে হয়েছে ১৯ দশমিক ৭৬ শতাংশ।

অন্যদিকে গত ফেব্রুয়ারি শেষে মোট শেয়ারে বিদেশিদের অংশ ছিল ২ দশমিক ১৭ শতাংশ, যা মার্চের শেষে দাঁড়িয়েছে ২ দশমিক ১৩ শতাংশ। মোট বাজার মূলধনেও বিদেশিদের অংশ ৪ দশমিক ২০ শতাংশ থেকে ৪ দশমিক শূন্য ৭ শতাংশে নেমেছে।

মার্চ শেষে তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর শেয়ারহোল্ডারদের ধরন অনুযায়ী শেয়ার ধারণের যে তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে, তা পর্যালোচনায় এমন চিত্র মিলেছে।

ব্যাপক উত্থানের পর গত অক্টোবর থেকে শেয়ারবাজারে থেমে থেমে দরপতন চলছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে গত ৯ মার্চ সব শেয়ারদরের নিচের সার্কিট ব্রেকার ১০ শতাংশ থেকে ২ শতাংশে নামিয়ে আনে শেয়ারবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি। তাতে অবশ্য ফল হয়নি।

এ অবস্থায় প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের ওপর বিএসইসির পক্ষ থেকে নতুন বিনিয়োগ করার চাপ ছিল। বাণিজ্যিক ব্যাংক থেকে শুরু করে আর্থিক প্রতিষ্ঠান, বীমা কোম্পানি থেকে শুরু করে মার্চেন্ট ব্যাংক, ব্রোকারেজ হাউস এবং সম্পদ ব্যবস্থাপক কোম্পানিগুলোকেও ‘ফ্রেশ’ বিনিয়োগের আহ্বান জানায় সংস্থাটি। তাছাড়া লাগাতার পতনেও অনেক শেয়ারের দর বেশ খানিকটা কমে আসে। এ কারণেও নতুন বিনিয়োগ বাড়তে পারে।

প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, মার্চ শেষে তালিকাভুক্ত ৩৮৪ শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের মোট পরিশোধিত মূলধন ছিল ৮৭ হাজার ৫০৭ কোটি টাকা। অর্থাৎ মোট শেয়ার বা ইউনিট সংখ্যা ছিল প্রায় ৮ হাজার ৭৫১ কোটি। এতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের শেয়ার ছিল ১ হাজার ৭২৯ কোটি। ফেব্রুয়ারি শেষের মোট ৮ হাজার ৭৪৩ কোটি শেয়ারে তাদের শেয়ার ছিল ১ হাজার ৭২৪ কোটি।

তাছাড়া মার্চ শেষে বাজার মূলধন ছিল ৪ লাখ ৭৬ হাজার ৩৯৪ কোটি টাকা। এতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের শেয়ারের বাজারমূল্য ছিল ৭১ হাজার ২৬৪ কোটি টাকা, যা ফেব্রুয়ারি শেষে ছিল ৭০ হাজার ২৮৭ কোটি টাকা। এ সময়ে ব্যাপক দরপতনে বাজার মূলধন চার হাজার ২০০ কোটি টাকা কমে চার লাখ ৭৬ হাজার ৩৯৪ কোটি টাকায় নামে। যদিও প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের শেয়ারমূল্য ৯৭৬ কোটি টাকা বেড়েছে।

মার্চে যেসব শেয়ারে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বেড়েছে, তার মধ্যে রয়েছে- এডভেন্ট ফার্মা, ইবনে সিনা, জিএসপি ফাইন্যান্স, বিডি ল্যাম্পস, লিবরা, সোনালী পেপার, প্রিমিয়ার ব্যাংক, ফরচুন সুজ, এসকে ট্রিমস, ইয়াকিন পলিমার, লাভেলো। বিপরীতে ফারইস্ট লাইফ, বিডিকম, এনভয়, ডেলটা স্পিনার্স, প্যারামাউন্ট ইন্স্যুরেন্স, পিপলস ইন্স্যুরেন্স, রূপালী লাইফ, আমরা টেকনোলোজিস, ইভিন্স, এডিএন টেলিকম থেকে কমেছে।

অন্যদিকে আমরা নেটওয়ার্কস, ব্র্যাক ব্যাংক, অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ, সিঙ্গার, আইডিএলসি, আরএকে সিরামিক, মারিকো, স্কয়ার ফার্মা, বেক্সিমকো ফার্মা, গ্রামীণফোন থেকে বিদেশি বিনিয়োগ কমেছে। সামান্য বেড়েছে ইস্টার্ন হাউজিং, ঢাকা ডাইং, বিবিএস, ডিবিএইচ ও রেনাটায়।

সংবাদের সূত্রসমকাল অনলাইন
spot_img

অন্যান্য সংবাদ