বুধবার, সেপ্টেম্বর 28, 2022

লভ্যাংশ ঘোষণা গ্রীন ডেল্টা ইন্সুরেন্সের

পুঁজিবাজার রিপোর্টঃ পুঁজিবাজারে বীমা খাতে তালিকাভুক্ত গ্রীন ডেল্টা ইন্সুরেন্স লিমিটেড আগের বছরের তুলনায় আয় করেছে। এর ধারাবাহিকতায় সদ্য সমাপ্ত হিসাব বছরের জন্য মোট ৩০ শতাংশ লভ্যাংশ প্রদানের সুপারিশ করেছে এর পরিচালনা পর্ষদ। এর মধ্যে পুরোটাই নগদ। অর্থাৎ বিনিয়োগকারীরা প্রতি শেয়ারে পাবেন ৩ টাকা। গত ৩০ জুন সমাপ্ত অর্থবছরের হিসাব পর্যালোচনা করে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়।

কোম্পানিটির লভ্যাংশ সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ৮ মার্চ। অর্থাৎ যারা লভ্যাংশ নিতে চান, তাদেরকে সেদিন শেয়ার ধরে রাখতে হবে। লভ্যাংশ চূড়ান্ত করতে বার্ষিক সাধারণ সভা ডাকা হয়েছে আগামী ৩০ মার্চ। বেলা বেলা ১১টায় ডিজিটাল প্লাটফর্মে এ সভা অনুষ্ঠিত হবে।

উল্লেখ্য, গত হিসাব বছর ২৪.৫ শতাংশ নগদের পাশাপাশি ৭.৫ শতাংশ বোনাস শেয়ার পেয়েছিলেন বিনিয়োগকারীরা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (EPS) হয়েছে ৮ টাকা ৪৩ পয়সা, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা ছিল ৬ টাকা ৬৬ পয়সা। এ হিসাবে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় বেড়েছে ৮ টাকা ৪৩ পয়সা বা শতাংশ।

এ সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি নিট পরিচালন নগদ প্রবাহ (NOCFPS) দাঁড়ায় ১ টাকা ৭০ পয়সা(ঋণাত্বক), যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ৯ টাকা ২৪ পয়সা।। যা গত বছরের চাইতে ১০ টাকা ৯৪ পয়সা বা ১১৮ শতাংশ কম।

এই বছর শেষে প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (NAVPS) দাঁড়িয়েছে ৬৯ টাকা ৩২ পয়সা, আগের হিসাব বছর শেষে যা ছিল ৬৮ টাকা ৯৫ পয়সা । সে হিসাবে কোম্পানিটির সম্পদমূল্য শেয়ার প্রতি বেড়েছে , যা শতকরার হিসেবে ১ শতাংশ।

উল্লেখ্য, বীমা খাতে তালিকাভুক্ত গ্রীন ডেল্টা ইন্সুরেন্সের মোট শেয়ারের ৩৫ দশমিক ৩২ শতাংশ রয়েছে উদ্যোক্তা-পরিচালকদের হাতে। শূন্য শতাংশ শেয়ার রয়েছে সরকারের কাছে। এছাড়া ১৯ দশমিক ৬১ শতাংশ প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী, ৫ দশমিক ৯৮ শতাংশ বিদেশী ও বাকি ৩৯ দশমিক ০৯ শতাংশ শেয়ার রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে।

ডিএসইতে সর্বশেষ কার্যদিবসে গ্রীন ডেল্টা ইন্সুরেন্সের লেনদেন শুরু হয় ১ টাকা ৮০ পয়সায় এবং সর্বশেষ ৪ দশমিক ৭৬ শতাংশ বা ৪ টাকা ৮০ পয়সা কমেছে লেনদেন শেষ হয় ৯৬ টাকায়। শেয়ারটির দর ৯৫ টাকা ২০ পয়সা থেকে১ টাকা ৪০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে। এই কার্যদিবসে কোম্পানিটির ৭ লক্ষ ৪২ হাজার ৯৬৬টি শেয়ার মোট ১ হাজার ৬২৭ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ৭ কোটি ২১ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা।

spot_img

অন্যান্য সংবাদ