বুধবার, সেপ্টেম্বর 28, 2022

ডিসেম্বর ক্লোজিংগুলোর বড় উত্থান খুব শিগগিরই

পুঁজিবাজার রিপোর্টঃ অন্যান্ন বারের চেয়ে এবার একটু ভিন্ন মাত্রায় এগুচ্ছে পুঁজিবাজার।অন্যান্ন বার ফেব্রুয়ারির এই সময়টায় ডিসেম্বর ক্লোজিংয়ের ব্যাংক ফাইন্যান্স ধুমছে উত্থানে থাকতো। অথচ আজ ডিসেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহের ৪র্থ কার্যদিবস যাচ্ছে কিন্তু ব্যাংক ফাইন্যান্স বাড়ার কোনো খবর নেই। বরং আজও উত্থান হওয়া সুচকের বড় অবদান টেক্সটাইল সেক্টরের।তবে আগামিকাল ব্যাংক ফাইন্যান্সে একটি বড় উত্থান ঘটতে পারে বলে একটি অসমর্থিত সুত্র থেকে জানিয়েছে। ওই সুত্র বলেছে, ব্যাংকগুলোর এক্সপোজার নিয়ে এতদিন ধরে যে জটিলতা ছিল খুব শিগগিরি তা কেটে যাবে।শিগগিরই এ বিষয়ে আইনে সংশোধনী আনতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এরমাধ্যমে আর্থিক প্রতিষ্ঠানসহ বিনিয়োগকারীদের বহুল প্রত্যাশিত বাজার দরের পরিবর্তে ক্রয় মূল্যে বিনিয়োগ সীমা গণনা করা হবে।

ওই সুত্র আরো জানিয়েছে, ব্যাংক ও লিজিং কোম্পানির শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ সীমা গণনায় এরইমধ্যে মন্ত্রণালয় থেকে বাংলাদেশ ব্যাংককে দিকনির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এজন্য প্রয়োজনীয় আইন সংশোধন করতে হবে।

তবে আইন সংশোধনের আগে মৌখিকভাবে বিনিয়োগ সীমা কস্ট প্রাইসে করার বিষয়টি ব্যাংক ও লিজিং কোম্পানি কর্তৃপক্ষকে জানানোর জন্য বাংলাদেশ ব্যাংককে মন্ত্রণালয় থেকে বলে দেওয়া হয়েছে।

পুঁজিবাজারে দীর্ঘদিন ধরেই বিনিয়োগ সীমা গণনায় কস্ট প্রাইসকে বিবেচনায় নেওয়ার জন্য বিভিন্ন মহল থেকে দাবি জানিয়ে আসা হচ্ছে। এর পেছনে শেয়ারবাজার উর্ধ্বমূখী ধারায় গেলেই বাজার দর বেড়ে যাওয়ায় আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ সীমা অতিক্রম করে। ফলে বিদ্যমান আইনের কারনে ব্যাংক ও লিজিং কোম্পানিগুলোর বাধ্যতামূলক বিক্রির চাপ আসে এবং বাজারে পতন হয়।

উল্লেখ্য, বর্তমানে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ি ব্যাংক ও লিজিং কোম্পানিগুলো একক হিসাবে মূলধনের সর্বোচ্চ ২৫% ও সাবসিডিয়ারিসহ সমন্বিতভাবে ৫০% শেয়ারবাজারে বিনিয়োগের সুযোগ রয়েছে।

এদিকে আজকের বাজার বিশ্লেষণে দেখা এক্সাচ্ছে, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৮.৫৯ পয়েন্ট বা ০.১২ শতাংশ বেড়ে সাত হাজার ৮১.৩৮ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। আজ ডিএসইর অপর সূচকগুলোর মধ্যে ডিএসইর শরিয়াহ সূচক ১.৫১ পয়েন্ট বা ০.১০ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৫১২.৮৯ পয়েন্টে। আর ডিএসই-৩০ সূচক ৫.৩৪ পয়েন্ট বা ০.২০ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে দুই হাজার ৬০৪.৯৮ পয়েন্টে।

ডিএসইতে আজ এক হাজার ১৫০ কোটি ৮১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যা আগের কার্যদিবস থেকে ২৯৮ কোটি ৯৫ লাখ টাকা কম। আগের কার্যদিবস লেনদেন হয়েছিল এক হাজার ৪৪৯ কোটি ৭৫ লাখ টাকার।

ডিএসইতে আজ ৩৭৯টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ২০৫টির বা ৫৪.০৯ শতাংশ শেয়ার ও ইউনিটের দর বেড়েছে। দর কমেছে ১২৮টির বা ৩৩.৭৭ শতাংশের এবং ৪৬টি বা ১২.১৪ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

spot_img

অন্যান্য সংবাদ