বৃহস্পতিবার, মে ২৬, ২০২২

দ্বিধার বলয় থেকে পতনের ঢেউয়ে বাজার

পুঁজিবাজার রিপোর্টঃ বছরের প্রথম থেকেই চাংগা পুঁজিবাজারে গত সপ্তাহটা বিনিয়োগকারিদের কেটেছে বেশ দ্বিধাদ্বন্দে। লকডাউনের আশংকার সাথে ইপিএস প্রকাশের কারনে অস্থির বাজারে যে দ্বিধা-বলয় ছিল তা ভেংগে গেলো আজকের পতনের ঢেউয়ে।

সপ্তাহের প্রথম দিনেই সূচকের বড় পতন দেখল বিনিয়োগকারীরা। আজ রোববার লেনদেনের শুরুর প্রথম চার মিনিটই শুধু সূচক বেড়েছিল। এরপর সূচক কেবল পড়েই গেছে। ধীর কিন্তু টানা এ পতনে দিনের শেষ পর্যন্ত ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স আজ ৩৬ পয়েন্ট হারিয়েছে, সাথে চিড় ধরিয়েছে ৭০০০ পয়েন্টকে ঘিরে বিনিয়োগকারিদের আশার পারদে।
গত কয়েকদিন যে আইসিবি ইনডেক্সে পয়েন্ট যোগ করে আসছিলো, আজ সেই আইসিবি উলটো চিত্র দেখালো। শুধু আইসিবি একাই কমিয়েছে সাড়ে ১২ পয়েন্ট। অন্যদিকে ইনডেক্স টেনে নামানোতে দ্বিতীয় ও তৃতীয় যে দুটো কোম্পানি রয়েছে তাদের কারনে আজ অদ্ভুত অভিজ্ঞতা হয়েছে বিনিয়োগকারিদের। এরা প্রত্যেকেই আজ তাদের দ্বিতীয় প্রান্তিকের প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। সেখানে তাদের আয় আগের বছরের একই সময়ের চাইতে প্রায় দ্বিগুন হয়েছে। অথচ এদের দর আজ কমেছে যথাক্রমে ৬.০৪ শতাংশ ও ৪.৪২ শতাংশ। অবশ্য বাজার সংশ্লিষ্টরা এর পেছনে সাধারণ বিনিয়োগকারিদের বাজার নিয়ে ভয়কেই দায়ি করেছেন। তাদের মতে বিনিয়োগকারিরা কিছুটা বিভ্রান্তিতে রয়েছেন। বাজার আরও কমে যাবে বিনিয়োগকারীদের এমন শঙ্কায়, আজ এসবের শেয়ার না কিনে কেউ অপেক্ষায় ছিলেন, আবার কেউ শেয়ার কম দামে ছেড়ে দিয়েছেন।

ডিএসইতে এদিন ১ হাজার ৩২৯ কোটি ৭৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে, যা আগের কার্যদিবসের চেয়ে ১১০ কোটি টাকা বেশি। তবে আজ লেনদেন কিছুটা বাড়লেও একই দিনে ২২৯টি কোম্পানির দরপতনে বাজার ঘিরে যে হতাশা আছে, তা যেন আরও স্পষ্ট হলো। তবে বাজারসংশ্লিষ্টদের আশা, গত সপ্তাহ থেকেই বাজারের যে ধীরগতি দেখা যাচ্ছে, তা শিগগিরই কেটে যাবে। গত ৩ কার্যদিবস ধরে লেনদেনের বৃদ্ধিতে তারা সেই আশার আলোই দেখছেন।

আজ দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৩৫.৯৯ পয়েন্ট কমে ৬ হাজার ৯৯১.৫৫ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। ডিএসইর অন্য সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়া সূচক ৮.৮০ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৪৯১.১৬ পয়েন্টে। ডিএসই-৩০ সূচক ১৭.১৮ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৫৮৫.১৫ পয়েন্টে।

রোববার ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেওয়া ৩৮০ কোম্পানির মধ্যে শেয়ারের দাম বেড়েছে ১১৮টির, কমেছে ২২৯টির এবং অপরিবর্তিত আছে ৩৩টির। ডিএসইতে এদিন ১ হাজার ৩২৯ কোটি ৭৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে, যা আগের কার্যদিবসের চেয়ে ১১০ কোটি টাকা বেশি।

এদিকে, অপর শেয়ারবাজার সিএসইর প্রধান সূচক সিএসইএক্স ৪৮.৬৪ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১২ হাজার ৩১৭.৭৪ পয়েন্টে। অপর সূচকগুলোর মধ্যে সার্বিক সিএএসপিআই সূচক ৮১.৮৯ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ২০ হাজার ৫০৪.০২ পয়েন্টে এবং সিএসআই সূচক ১২.৬৫ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১ হাজার ২৭৬.৯৮ পয়েন্টে।

রোববার সিএসইতে ৩০৩ টি কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৯৭টির, কমেছে ১৭০টির এবং অপরিবর্তিত আছে ৩৭টির। দিন শেষে সিএসইতে ৪১ কোটি ২৪ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। যা আগের দিনের চেয়ে ৬ কোটি টাকা কম।

spot_img

অন্যান্য সংবাদ