বুধবার, অক্টোবর 5, 2022

শিগগিরই এসএমইতে লেনদেন শুরু কৃষিখাতের মামুন এগ্রো’র

পুঁজিবাজার রিপোর্টঃ খুব শিগগিরই লেনদেন শুরু করতে যাচ্ছে কীটনাশক ও বীজ বাজারজাতকারি কোম্পানি ‘মামুন এগ্রো প্রোডাক্টস লিমিটেড’। গত ২৭ জানুয়ারি কোম্পানিটির জন্য এসএমই প্লাটফমে কোয়ালিফাইড ইনভেস্টর অফার (কিউআইও) ক্যাটাগরিতে বিনিয়োগকারী হিসাবে তালিকাভুক্তির আবেদন শেষ হয়েছে।

প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে (আইপিওর) বিকল্প পদ্ধতিতে স্মল ক্যাপ অর্থাৎ এসএমই বোর্ডের আওতায় কিউআইওর মাধ্যমে মামুন এগ্রো প্রোডাক্টস পুঁজিবাজার থেকে টাকা উত্তোলন করবে। এ লক্ষ্যে গত ২৮ অক্টোবর পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) কোম্পানিটির আবেদন অনুমোদন দিয়েছে।

মামুন এগ্রো যোগ্য বিনিয়োগকারিদের কাছ থেকে ১০ টাকা অভিহিত মূল্যে ১ কোটি শেয়ার ইস্যু করে ১০ কোটি টাকা সংগ্রহ করবে। এ টাকা কারখানা ভবন ও অন্যান্য নির্মাণ, চলতি মূলধনের চাহিদা পূরণ এবং ইস্যু ব্যবস্থাপনা খাতে ব্যয় করবে কোম্পানিটি।

উল্লেখ্য, সারাদেশে কৃষকদের কাছে মানসম্মত কীটনাশক সরবরাহের লক্ষ্যে ১৯৯৮ সালে মামুন এগ্রো’র যাত্রা শুরু হয়। এগ্রো-গ্রো নামে কোম্পানির নিজস্ব উদ্ভাবিত তরল ও দানাদার কীটনাশকের মাধ্যমে ব্যবসা শুরু করে কোম্পানিটি। এখন পর্যন্ত বালাইনাশকের চাহিদার একটি বড় বাজারের যোগান দিচ্ছে পন্যটি।

বর্তমানে মামুন এগ্রো কীটনাশক, ছত্রাকনাশক, আগাছানাশক, মাইক্রোনিউট্রিয়েন্টস ফার্টিলাইজার এবং প্লান্ট গ্রোথ রেগুলেটর সহ প্রায় ৭৫টি পন্য বালাইনাশক ডিলার-রিটেইলারদের মাধ্যমে কৃষকদের কাছে পৌছে দিচ্ছে।

এগ্রো-গ্রো (দানাদার) ও এগ্রো-গ্রো (তরল) ছাড়াও ছহি ৫০৫ইসি, টিটারন ২০এসপি, টারটার ১.৮ইসি, এগসাইপার ১০ইসি, এগফস ২০ইসি, এমফুরান ৩জি, এমফুরান ৫জি, এমজয়েট ৫এসজি, যাবাত ২৫ ডব্লিউডিজি, বাইমোল ৭৫ ডব্লিউপি, টল ২৫ ইসি, এম-হিটার ৫০ ডব্লিউডিজি, মাইকোসাল ৮০ডব্লিউডিজি, মেটাজেব ৭২ ডব্লিউডিপি বেনক্লোর ১৮ ডব্লিউডিপি উইডগার্ড ৫০০ইসি, এমফোসেট ৪১এসএল, এমকোয়াট ২০এসএল, এম-কুইজ ৫ইসি, ভিটাজিংক প্লাস, ভিটাজিংক গোল্ড, এগ্রোম্যাগভিট, জীবন্ত, টপক্রপ, বিভিন্ন ফসলের হাইব্রিড সীডস ইত্যাদি মামুন এগ্রো’র উল্লেখযোগ্য পন্য।

মামুন এগ্রো সারাদেশে ৪’শর বেশি ডিলার এবং ১৫ হাজারের অধিক রিটেইলার নেটওর্য়াকের মাধ্যমে এসব পন্য কৃষকদের দোড়গোড়ায় পৌঁছে দিচ্ছে। কোম্পানিটির দেশব্যাপী ৬টি রিজিওনে ৩টি ডিপো অফিস (ময়মনসিংহ, রংপুর, রাজশাহী) ও ৮০টি টেরিটোরি রয়েছে।

প্রতিবেশী ভারতের বিখ্যাত কোম্পানি সারদা ক্রপকেম, কৃষি রসায়ন, এরিস্টা লাইফ সায়েন্স, হেরানবা ইন্ডাস্ট্রিজ এবং চীনের কোম্পানি ঝিজিয়ান ডাইয়্যু, রাইয়্যু কেমিক্যাল, নানজিং বেস্টগ্রীন ইত্যাদি কোম্পানি থেকে মামুন এগ্রো ফিনিশড পন্য ও টেকনিক্যাল পন্য আমদানি করে ফরমুলেশন ও রিপ্যাকিংয়ের মাধ্যমে বাজারজাত করে যাচ্ছে।

কোম্পানিটির রয়েছে ১টি অত্যাধুনিক দানাদার কীটনাশক ফরমুলেশন প্ল্যান্ট এবং ১টি লিকুইড কীটনাশক ফরমুলেশন প্ল্যান্ট। সারাদেশে কৃষকদের কাছে পন্যের গ্রহনযোগ্যতা, পন্যের গুণগতমান, ব্যবসায়িক সুনাম, দক্ষ জনবল, কৃষি সেবা ইত্যাদি বিবেচনায় মামুন এগ্রো ইতোমধ্যে বালাইনাশক ইন্ডাস্ট্রিতে প্রথম সারির কোম্পানিগুলোর মধ্যে অবস্থান করছে।

spot_img

অন্যান্য সংবাদ