বৃহস্পতিবার, মে ২৬, ২০২২

লেনদেন ২ হাজার কোটি টাকা খুব শিগগিরই

পুঁজিবাজার রিপোর্টঃ নতুন বছরে একটি চমৎকার সপ্তাহ কাটিয়েছে পুঁজিবাজারের বিনিয়োগকারিরা। ২০২২ সালের প্রথম সপ্তাহের পাঁচ কার্যদিবসই লেনদেন আর সূচকের সন্তোষজনক উত্থানের ভেতর ছিল দেশের দুই স্টক এক্সচেঞ্জ। বিশেষ করে আজ বৃহস্পতিবার সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে বিনিয়োগকারিদের বহুল কাঙ্খিত সুচকের ৭ হাজার পয়েন্ট ছুঁয়েছে কয়েকবার। যদিও লেনদেনের শেষ পর্যায়ে এই অবস্থান থেকে কিছুটা কমে সুচক স্থির হয়েছে ৬৯৮৭ পয়েন্টে। অপরদিকে লেনদেনের পরিমান বাড়তে বাড়তে আজ তা দেড় হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়ে গেছে। যার পরিমান প্রায় ১৬৮০ কোটি টাকা। উৎফুল্ল বিনিয়োগকারিরা যারা আজ শেয়ার বিক্রি করেননি তাদের সবার প্রত্যাশা, আগামি রোববার অবশ্যই লেনদেন ২০০০ কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে এবং সূচক থাকবে ৭১০০ এর ওপরে।

সেপ্টেম্বর মাসের পর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত টানা পড়তি বাজারে যেসব বিনিয়োগকারি হতাশায় ভুগছিলেন তারাও নতুন বছরের উত্থান দেখে বাজারমুখী হওয়া শুরু করেছেন।তাদের সবারই বিশ্বাস, সরকার খুব শিগগিরই বিএসইসি এবং সেন্ট্রাল ব্যাংকের মধ্যে যে অবশিষ্ট বিরোধটুকু রয়েছে সেটুকুও নিরসন করতে সক্ষম হবে।

এদিকে আজকের বাজার বিশ্লেষনে দেখা যাচ্ছে ডিএসই’র প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স ৫৭ দশমিক ৫১৮৪৪ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৬ হাজার ৯৮৭ দশমিক ৪৫০৩৪ পয়েন্টে। অপর ডিএসইর অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ৮ দশমিক ৪৬৭০৯ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৪৭২ দশমিক ১৪৯৭৫ পয়েন্টে এবং ডিএসই-৩০ সূচক ২৭ দশমিক ২০৪২৬ পয়েন্ট বেড়ে ২ হাজার ৬৩ দশমিক ০৮৬৭৭ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

আজ ডিএসইতে মোট ৩৭৮টি কোম্পানি, ফান্ড ও বন্ডের লেনদেন হয়েছে। এদের মধ্যে দিন শেষে দর বেড়েছে ১৬৪টির, কমেছে ১৭৯টির আর অপরিবর্তিত ছিল ৩৫টি শেয়ারের বাজারদর। এদিন ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৬৮৩ কোটি ৪৭ লক্ষ ৬৮ হাজার টাকা যা আগের দিনের চাইতে ২৬৯ কোটি ৩১ লক্ষ ২৫ হাজার টাকা বেশি। আজকের লেনদেনে মোট ৩৭ কোটি ৭৭ লক্ষ ৬১ হাজার ৮৩৮টি শেয়ার ২ লক্ষ ৫৫ হাজার ৪৫বার হাতবদল হয়েছে।

এদিকে খাতভিত্তিক লেনদেনচিত্রে দেখা যায়, আজ ডিএসইর মোট লেনদেনের ১৩ দশমিক ৫৫ শতাংশ দখলে নিয়ে শীর্ষে অবস্থান করছে বিবিধ খাত। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১১ দশমিক ১৪ শতাংশ দখলে নিয়েছে জীবন বীমা খাত। ১০ দশমিক ৭ শতাংশ লেনদেনের ভিত্তিতে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাত। ৯ দশমিক ৩৯ শতাংশ লেনদেনের ভিত্তিতে চতুর্থ অবস্থানে ছিল ব্যাংক খাত। আর ঔষধ ও রসায়ন খাতের দখলে ছিল মোট লেনদেনের ৮ দশমিক ৮৪ শতাংশ।

আজ সূচকের উত্থানে সবচেয়ে বেশি ভূমিকা রাখে ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন এন্ড ডিসটিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড। মোট সূচকের মধ্যে ৫ দশমিক ২৫ পয়েন্ট বাড়িয়ে দেয় ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন এন্ড ডিসটিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড একাই। সাথে লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশ লিমিটেড ৫ দশমিক ১৯, তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড ৪ দশমিক ৪২ পয়েন্ট বাড়িয়ে সূচকের উত্থানে ভূমিকা রাখে। এছাড়াও ব্রিটিশ আমেরিকান টোবাকো বাংলাদেশ কোম্পানি লিমিটেড, বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানি লিমিটেড, ডেল্টা লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড, গ্রামীনফোন লিমিটেড, এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংক লিমিটেড, পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অফ বাংলাদেশ লিমিটেড, ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড সূচকের উত্থাণে অগ্রণী ভুমিকা রাখে।

অন্য দিকে সূচক কমানোর চেষ্টায় রেনেটা লিমিটেড সবচে সক্রিয় ভূমিকা রাখে। এদিন ১ দশমিক ০১ পয়েন্ট কমে রেনেটা লিমিটেড’র শেয়ারের কারনে। এছাড়াও সোনালী পেপার এন্ড বোর্ড মিলস লিমিটেড দশমিক ৮৯, জেনেক্স ইনফোসিস লিমিটেড দশমিক ৫৪ পয়েন্ট কমিয়ে দিয়েছে সুচক। এর সাথে সূচক কমাতে আরো ভূমিকা রাখে , সিভিও পেট্রোকেমিক্যাল রিফাইনারি লিমিটেড, ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড, ফরচুন সুজ লিমিটেড, ন্যাশনাল লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড, রেকিট বেনকিজার (বাংলাদেশ) লিমিটেড, ইউনিলিভার কনজিউমার কেয়ার লিমিটেড – আবার ডিএসইতে লেনদেনের ভিত্তিতে করা তালিকার শীর্ষে ছিল ডেল্টা লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড।

এদিন কোম্পানিটির প্রায় ১১৮ কোটি ৮৬ লক্ষ ৪০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। বাংলাদেশ এক্সপোর্ট ইম্পোর্ট কোম্পানি লিমিটেড, বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশন (বিএসসি), লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশ লিমিটেড, পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অফ বাংলাদেশ লিমিটেড লিমিটেড লেনদেনের ভিত্তিতে তালিকার শীর্ষ দশে ছিল।

আজ এক্সচেঞ্জটিতে দরবৃদ্ধির শীর্ষে থাকা কোম্পানিগুলো হচ্ছে বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশন (বিএসসি), ঢাকা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেড, মীর আক্তার হোসেন লিমিটেড, তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড, ওয়েস্টান মেরিন শিপইয়ার্ড লিমিটেড লিমিটেড।

অন্যদিকে ডিএসইতে আজ সবচেয়ে বেশি দর কমেছে , অলটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, সিভিও পেট্রোকেমিক্যাল রিফাইনারি লিমিটেড, দা ঢাকা ডাইং এন্ড ম্যা্নুফ্যাকচারিং কোম্পানি লিমিটেড, এমারেল্ড অয়েল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড, সুরিদ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, তৌফিকা ফুডস অ্যান্ড এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটৈড লিমিটেডের।

এদিকে ব্লক মার্কেটে মোট ৪১টি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিগুলোর মোট ৩ কোটি ৭৭ লক্ষ ৪৬ হাজার ২৬টি শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যার আর্থিক মূল্য ১৪১ কোটি ৯৮ লক্ষ ২১ হাজার টাকা।

spot_img

অন্যান্য সংবাদ