বৃহস্পতিবার, মে ২৬, ২০২২

নাভানা ফার্মার রোড শো অনুষ্ঠিত

পুঁজিবাজার রিপোর্টঃ নাভানা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড তাদের ব্যবসা সম্প্রসারণের জন্য আইপিও’র মাধ্যমে ৭৫ কোটি টাকা সংগ্রহ করতে চায় । এ উদ্দেশ্যে কোম্পানিটি গতকাল (২১ ডিসেম্বর) প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে নিজেদের পরিচয় করিয়ে দেবার জন্য রোডশোর আয়োজন করে।

রাজধানীর বনানীর শেরাটন হোটেলে আয়োজিত এই রোডশোটিতে কোম্পানিটি তাদের প্রসপেক্টাসে বিগত ৫ অর্থবছরের আর্থিক প্রতিবেদন তুলে ধরা হয়।

রোডশোটিতে নাভানা ফার্মাসিউটিক্যালসের চেয়ারম্যান আনিসুজ্জামান চৌধুরী বলেন, নাভানা ফার্মাসিউটিক্যাল সব সময় মান সম্মত প্রোডাক্ট তৈরি করে যাচ্ছে। ফার্মাসিউটিক্যাল সেক্টরে কোম্পানিটি শক্ত অবস্থানে রয়েছে। ২০২১ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত নাভানা কোম্পানি করপরবর্তী ২০ কোটি টাকা মুনাফা করেছে বলে উল্লেখ করা হয় । বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, নাভানা ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেড ৩০ বছর অতিক্রম করেছে। এছাড়াও বাংলাদেশে ভ্যাকসিন তৈরির পরিকল্পনার কথা উল্লেখ করেন।

রোড-শো তে আরও বক্তব্য দেন নাভানা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড এর ব্যাবস্থাপনা পরিচালক জুনায়েদ শফিক, ডিরেক্টর অফ সেলস অ্যান্ড মার্কেটিং ড. সাঈদ আহমেদ। ১৯৮৬ সালে প্রতিষ্ঠিত এই কোম্পানিটি মূলত পশুচিকিৎসা এবং মানব স্বাস্থ্য এই দুটি বিভাগের অধীনে তাদের ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে।কোম্পানীর ভেটেরিনারি বিভাগ পোল্ট্রি, দুগ্ধ এবং জলজাত পণ্য সহ বিভিন্ন বিভাগের জন্য ১২৩ টিরও বেশি উচ্চ-মানের ওষুধ এবং ফিড সাপ্লিমেন্ট তৈরি করে এবং বাজারজাত করছে।
অন্যদিকে, মানব স্বাস্থ্য বিভাগ ২৭৭ টিরও বেশি ওষুধ তৈরি করে । ট্যাবলেট, ক্যাপসুল, ওরাল লিকুইড, , পাউডার, চোখের ড্রপ, ইত্যাদি পণ্য নিয়ে কাজ করছে।

নাভানা ফার্মার প্রায় ৩০০০ কর্মী নিয়ে দেশীয় ও আন্তর্জাতিক বাজারে প্রায় ১৫ টি দেশে এসব পণ্য রপ্তানি করছে বলে জানানো হয়। কোম্পানিটির ২০২০-২১ অর্থবছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুসারে, কোম্পানির নিট মুনাফা দাঁড়িয়েছে ১৭.৯৮ কোটি টাকা, যা আগের অর্থবছরে ১৩.১৩ কোটি টাকা ছিল । এ সময়ে কোম্পানিটির আয় ছিল ৩৬০.৬৬ কোটি টাকা, যা আগের বছরে ছিল ৩১৪.৯০ কোটি টাকা । কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় ছিল ২.২৪ টাকা, যা আগের বছরে ছিল ১.৬৪ টাকা এবং একই অর্থবছরে এ এর শেয়ার প্রতি নিট সম্পদের মূল্য ছিল ৪০.৯ টাকা রেকর্ড করা হয়।

কোম্পানিটির ইস্যু ম্যানেজার হিসেবে কাজ করছে এশিয়ান টাইগার ক্যাপিটাল পার্টনারস ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড, ইউসিবি ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড এবং ইবিএল ইনভেস্টমেন্টস লিমিটেড।

spot_img

অন্যান্য সংবাদ